bnp

২৫ জানুয়ারি আবারও সমাবেশের ঘোষণা বিএনপির

রাজনীতি

১০ দফা দাবি বাস্তবায়ন ও বিদ্যুতের মূল্য কমানোর দাবিতে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে বিএনপি। রাজধানীতে দলটির সমাবেশ-মিছিল থেকে আবারও ২৫ জানুয়ারি সমাবেশের ঘোষণা দিয়েছে বিএনপি। ওই একই দিনে তারা ‘গণতন্ত্র হত্যা দিবস’ পালন করবে দেশের মহানগর ও জেলা শহরে। যুগপৎ আন্দোলনে থাকা কয়েকটি দল ও জোট ভিন্ন দাবিতে একই কর্মসূচি দিয়েছে। তবে পিছুটান দিয়েছে জামায়াতে ইসলামী, নুরুল হক নুরের গণঅধিকার পরিষদসহ কয়েকটি দল। যুগপৎ আন্দোলন নিয়ে জোটের মধ্যেও দেখা দিয়েছে মতবিরোধ। এর জেরে গতকালের কর্মসূচিতে অংশ নেয়নি নুরুল হক নুরের দল।

সোমবার বিকালে নয়াপল্টনে বিএনপি আয়োজিত সমাবেশে স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন দলের কর্মসূচির ঘোষণা দেন। এটি ছিল যুগপৎ আন্দোলনের তৃতীয় কর্মসূচি। সমাবেশে বক্তারা বলেছেন, শান্তিপূর্ণ আন্দোলনের মধ্য দিয়ে সরকারকে পরাভূত করা হবে। ঢাকার বাইরেও বিভিন্ন মহানগর ও উপজেলায় এই কর্মসূচি পালন করছে বিএনপি। তবে শরিকরা ঢাকায় সীমাবদ্ধ ছিল।

১০ দফা এবং বিদ্যুতের বর্ধিত দাম প্রত্যাহারের দাবিতে দুপুর আড়াইটা থেকে নয়াপল্টনে সমাবেশ শুরু হয়। এ সময় দুই পাশের সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। সমাবেশ শেষে ফকিরাপুল থেকে নাইটিঙ্গেল মোড়ের দুই পাশের সড়কে মিছিল করেন বিএনপির নেতাকর্মীরা। জনভোগান্তি বিবেচনায় রুট সংক্ষিপ্ত করার ঘোষণা দিয়ে মিছিল করে দলটি। সমাবেশে দলের স্থায়ী কমিটির আরেক সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেন, সরকার প্রতিবছর বিদ্যুতের দাম বাড়িয়েছে। এখন প্রতি মাসে বিদ্যুতের দাম সমন্বয় করা হচ্ছে তাদের চুরির সঙ্গে।

স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেন, দেশের মানুষের ক্রয়ক্ষমতা সর্ব নিচে নেমেছে। দুই বেলা খাওয়ার জোগাড় হচ্ছে না বিশাল অংশের মানুষের। সাধারণ মানুষের কাছ থেকে উচ্চ দাম, বিদ্যুৎ, গ্যাস, ট্যাক্সের মাধ্যমে পকেট খালি করা হচ্ছে।

সমাবেশে প্রধান অতিথি ছিলেন দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন। অসুস্থ থাকায় ছিলেন না বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস। সভাপতিত্ব করেন ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির আহ্বায়ক আমানউল্লাহ আমান। নেতারা জানান, আপাতত তারা অহিংস সমাবেশ মিছিলের কর্মসূচি চালিয়ে যাবে।

বিএনপির এই কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে নয়াপল্টন ও আশপাশের এলাকায় বিপুলসংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়। নাইটিঙ্গেল মোড় ও ফকিরাপুল মোড়ের দিকে সাঁজোয়া যান রাখা হয়। কোনো অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। তবে সময় টেলিভিশনের ড্রোন ক্যামেরা ভেঙে ফেলা ও সংবাদকর্মীকে মারধরের অভিযোগ পাওয়া গেছে বিএনপি নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে।

কর্মসূচিতে ছিলেন না রব-মান্না ও নুরুল হক : সরকারবিরোধী যুগপৎ আন্দোলনের অংশ হিসেবে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে সমাবেশ করেছে গণতন্ত্র মঞ্চ। এই সমাবেশে অংশগ্রহণ করেনি নুরুল হক নুরের গণঅধিকার পরিষদ। অসুস্থতার কারণে শেষ দুটি কর্মসূচিতে ছিলেন না গণতন্ত্র মঞ্চের দুই শীর্ষ নেতা জেএসডির সভাপতি আ স ম আবদুর রব ও নাগরিক ঐক্যের সভাপতি মাহমুদুর রহমান মান্না। 

গণঅধিকার পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক ফারুক হাসান সময়ের আলোকে জানান, ১১ জানুয়ারি গণ-অবস্থানে গণঅধিকার পরিষদের সদস্য সচিব নুরুল হক দেশে এসে সরাসরি যোগ দেওয়ার কথা ছিল। গণতন্ত্র মঞ্চের নেতাদের জানালেও তারা সমাবেশ দীর্ঘায়িত না করে দ্রুত শেষ করে দেন। এ কারণে নুর সমাবেশে যোগ দিতে পারেননি। এর প্রতিবাদে গণঅধিকার পরিষদ কর্মসূচিতে অংশ নেয়নি।

এদিকে তেজগাঁওয়ে সমাবেশ করেছে লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি-এলডিপি। সেখানেও অনুপস্থিত ছিলেন চেয়ারম্যান অলি আহমেদ ও মহাসচিব রেদোয়ান আহমেদ। এ ছাড়া জাতীয়তাবাদী সমমনা জোট ও চারদলীয় বাম গণতান্ত্রিক ঐক্য প্রেসক্লাবের সামনে মিছিল করেছে। তারাও ২৫ তারিখ সমাবেশের ঘোষণা দিয়েছে। আর গতকাল ১২ দলীয় জোট ঢাকায় কর্মসূচি না করে আজ তারা বিজয়নগরে মিছিল করবে বলে জানা গেছে। সমমনাদের মধ্যে বড় শরিক জামায়াতে ইসলামী গতকালের কর্মসূচি পালন করেনি। এমনকি পরের কর্মসূচি নিয়েও কোনো ঘোষণা দেয়নি।

বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে বিএনপির কেন্দ্র ঘোষিত বিক্ষোভ মিছিলকে কেন্দ্র করে চট্টগ্রামে পুলিশের সঙ্গে দলটির নেতাকর্মীদের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় নেতাকর্মীরা ট্রাফিক পুলিশের একটি মোটরবাইকে আগুন ধরিয়ে দেয়। সংঘর্ষে অন্তত পুলিশসহ ১৫ জন আহত হয়েছে।

ধামরাই : ঢাকার ধামরাইয়ে উপজেলা বিএনপির সভাপতিসহ ৯ নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ। সোমবার বেলা ১১টার দিকে পৌর শহরের কৃষাণ মার্কেটের সামনে থেকে তাদের আটক করা হয়। ধামরাই উপজেলা বিএনপির সভাপতি তমিজ উদ্দিনকে আটকের বিষয়টি পুলিশ নিশ্চিত করলেও বাকিদের নাম জানাতে পারেনি। বিএনপি সূত্র জানায়, সরকার পতন ও তত্ত্ব¡াবধায়ক সরকারের দাবিতে সকালে ধামরাই বাজার এলাকায় কর্মসূচি পালন করছিল ধামরাই উপজেলা বিএনপি। এ সময় পুলিশের ধাওয়ায় কর্মসূচি বানচাল হয়ে যায়। পরে সেখান থেকে উপজেলা বিএনপি সভাপতিসহ ৯-১০ জনকে আটক করে পুলিশ।

আটকরা হলেন বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও ধামরাই উপজেলা বিএনপির সভাপতি মো. তমিজ উদ্দিন (৬৮), থানা দফতর সম্পাদক মো. মিকাইল আহমেদ (৪০), পৌর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মারুফ শিকদার (৪৩) ও স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক মো. মর্তুজ মিয়া (৪৫), উপজেলার কুশরা ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি আবদুল হাই (৫৯), কর্মী আহমদ আলী (২৮), মো. আবুল হোসেন (৬০), মো. শরীফ (৩২) ও লাভলু মিয়া (৪০)।

ধামরাই থানার ওসি আতিকুর রহমান জানান, সকালে ধামরাই বাজার এলাকায় বিএনপির নেতাকর্মীরা ভাঙচুর করার চেষ্টা করছিল। এতে বাধা দিলে পুলিশের সঙ্গে ধাক্কাধাক্কিতে জড়ান তারা। পরে উপজলা বিএনপির সভাপতিসহ ৯ জনকে আটক করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে মামলার বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন। এ ছাড়া বরিশাল, ভোলা, ঝিনাইদহ, কুড়িগ্রাম, নাটোর, ঠাকুরগাঁও, ঝালকাঠি, নওগাঁ, সিলেট, চাঁদপুর, কিশোরগঞ্জসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করে বিএনপি।