স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী - Speaker Shirin Sharmin Chowdhury

ধর্ষণ রোধে প্রয়োজন সচেতনতা : স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী

বাংলাদেশ

জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেছেন, নারী ও শিশুর প্রতি সহিংসতা এবং ধর্ষণ প্রতিরোধে সচেতনতা বৃদ্ধি করা প্রয়োজন এবং এসবের সঙ্গে জড়িত অপরাধীদের শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে। শনিবার জাতীয় সংসদ ভবনের শপথ কক্ষে জাতীয় মানবাধিকার কমিশন আয়োজিত ‘নারী ও শিশুর প্রতি সহিংসতা এবং ধর্ষণ প্রতিরোধে করণীয়’ বিষয়ে সংসদ সদস্যদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় তিনি এ কথা বলেন। 

মতবিনিময় সভায় সংসদ সদস্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আ স ম ফিরোজ, রাশেদ খান মেনন, শামসুল হক টুকু, মেহের আফরোজ চুমকি, রওশন আরা মান্নান, ফখরুল ইমাম, মো. হাবিবে মিল্লাত, হাবিবুন নাহার, লুৎফুননেসা খান, আরমা দত্ত, শামীমা আক্তার খানম, সৈয়দা রুবিনা আক্তার, অ্যাডভোকেট খোদেজা নাসরিন আক্তার হোসেন, মোহাম্মদ শহীদুজ্জামান ও অ্যাডভোকেট গ্লোরিয়া ঝর্ণা সরকার। জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান নাছিমা বেগমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন কমিশনের সার্বক্ষণিক সদস্য ড. কামাল উদ্দিন আহমেদ। 

অনুষ্ঠানে স্পিকার বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এদেশে নারীর ক্ষমতায়ন নিশ্চিত হয়েছে। নারীর প্রতি সহিংসতা এবং ধর্ষণ প্রতিরোধে পুরুষদের সংবেদনশীল ও সচেতন হতে হবে। পরিবারের ছেলে সন্তানদের বাল্যকাল থেকেই ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গির শিক্ষা দেওয়া জরুরি।

ধর্ষণ-পরবর্তী করণীয় ঠিক করার পাশাপাশি ধর্ষণ প্রতিরোধে ইতোমধ্যে গৃহীত সব পদক্ষেপের বাস্তবায়ন ও তদারকি প্রয়োজন। নারীদের সুরক্ষা ও নিরাপত্তা নিশ্চিতের জন্য কর্মস্থলসহ জনসমাগমের স্থানগুলোও সিসিটিভির আওতায় আনার পরামর্শ দেন তিনি। সব ধরনের সহিংসতা রোধে সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য উপযুক্ত গাইডলাইন ও নির্দেশিকা প্রস্তুত করে লিফলেট আকারে কমিউনিটি ক্লিনিক ও সমাজসেবা অধিদফতরের মাধ্যমে মেয়েদের স্কুল-কলেজে বিতরণের অভিমত ব্যক্ত করেন স্পিকার।