লেখক ভট্টাচার্য - lekhak Bhattacharya - bsl secretary

লেখক ভট্টাচার্যকে হেলমেট পরিয়ে নেওয়া হয় হাসপাতালে

রাজনীতি

বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ৭৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে অবস্থানকে কেন্দ্র করে সংগঠনটির ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কবি জসীমউদ্‌দীন হল শাখা ও ঢাকা কলেজ শাখার নেতাকর্মীদের মধ্যে হাতাহাতি হয়। আর তা মেটাতে গিয়ে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য আহত হয়েছেন। পরে সভাপতি আল নাহিয়ান জয়ও আঘাত পান।

তবে ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্যের ভাষ্যমতে, গুরুতর আহত বা বড় কোন সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেনি। যা ঘটেছে না নিছক ভুল বোঝাবুঝি এবং বিষয়টি সঙ্গে সঙ্গেই নিয়ন্ত্রণ করে ফেলা হয়।

মঙ্গলবার (৪ জানুয়ারি) দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে এ ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষের একপর্যায়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা লেখক ভট্টাচার্যকে হেলমেট পরিয়ে গাড়িতে করে স্থান ত্যাগ করেন। পরে মাথায় ব্যান্ডেজ পরে অনুষ্ঠানে যোগ দেন লেখক ভট্টাচার্য। অন্যদিকে সভাপতি জয় খুব বেশি আঘাত পাননি।  

প্রত্যক্ষদর্শীর বরাতে জানা যায়, বটতলার নিচে আগে এসে অবস্থান নেয় ঢাকা কলেজ ছাত্রলীগ। পরে সেখানে মিছিল নিয়ে জসীমউদ্‌দীন হল ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা আসেন। এরপর একপর্যায়ে তাদের মধ্যে হাতাহাতি শুরু হয়। তা থামাতে মঞ্চ থেকে বটতলার নিচে ছুটে যান সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য।

এই হাতাহাতি মারামারিতে পরিণত হয়। ইট, চেয়ার, বাঁশ ছোড়াছুড়িও হয়। আর তাতে সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্যসহ কমপক্ষে ৬ থেকে ৭ জন আহত হয়েছেন বলে খবর পাওয়া গেছে। আহতদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য নিয়ে যাওয়া হয়।

আহত হওয়ার খবরের সত্যতা নিশ্চিত হওয়ার জন্য লেখক ভট্টাচার্যের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, নেতাকর্মীদের মধ্যে ভুল বুঝাবুঝি হয়েছিলো। আমি যাওয়ার পরে বিষয়টি সমাধান হয়েছে। আহত হওয়ার বিষয়টি আসলে উল্লেখযোগ্য কিছু নয়, খুবই সামান্য ঘটনা।

এ ঘটনায় আহতরা হলেন, ঢাবির ছাত্রলীগ কর্মী  জুবায়ের (২২), মাহবুব (২২), শিমুল (২১), গালিব (২২), জহির (২২), জহিরুল ইসলাম অমি (২২), অপু (২৪) ঢাকা কলেজের আহত ছাত্রলীগ হিরু (২৫), রুমন (২৬), সালমান (২৪), সালমান-২ (২৩), আল-আমিন (২০), আবু নোমান (২৭)।

ঢাকা মেডিকেল কলেজের জরুরি বিভাগ থেকে জানানো হয়, ছাত্রলীগের ৬-৭ জন এসেছিলো। প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে তারা চলে গেছে। গুরুতর আহত কেউ ছিলো না।