পরিমনি - pori moni - পরীমনি - porimoni hot image

পরিমনিকে ধর্ষণ চেষ্টা করেন শিল্পপতি নাছির ইউ মাহমুদ

বিনোদন

আলোচিত নায়িকা পরিমনিকে ধর্ষণ ও হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন তিনি। অভিযুক্ত নাছির ইউ মাহমুদ নামের ঐ ব্যক্তি একজন শিল্পপতি, উত্তরা ক্লাবের সাবেক সভাপতি তিনি। পরীমনি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বরাবর একটি খোলা চিঠি পোস্ট করেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে। সেখানেই প্রথম তিনি বিষয়টি জানান। তারপর বাসায় সাংবাদিক ডেকে সংবাদ সম্মেলন করেন।

প্রায়ই বিভিন্ন ইস্যুতে আলোচনা সমালোচনার জন্ম দেন ঢালিউডের জনপ্রিয় এই নায়িকা। এবার তিনি নাইট ক্লাবে গিয়ে শারীরিকভাবে হেনস্তার শিকার হয়েছেন। উত্তরার একজন শিল্পপতির বিরুদ্ধে মূলত এই অভিযোগ করেছেন তিনি। রাত ১২ টার দিকে ক্লাবে যাওয়ার পর সেখানে ঐ শিল্পপতির সাথে মদ খেতে রাজি না হওয়ার পর তাকে শারীরিকভাবে এই নির্যাতন করা হয় বলে তিনি জানিয়েছেন।

তিনি দাবি করছেন, কয়েকদিন ধরে তিনি বিচারের দাবিতে বিভিন্ন যায়গায় দৌড়াদৌড়ি করেছেন কিন্তু কোন লাভ হয়নি। তাই তিনি তাঁর ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজ থেকে একটি স্টাটাস দিয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে বিচারের জন্য আবেদন জানান।

তিনি এটাও বলেন যে, প্রভাবশালী ঐ শিল্পপতি নাছির ইউ মাহমুদ বাংলাদেশ পুলিশের আইজিপি বেনজীর আহমেদ এর বন্ধু ও ঘনিষ্টজন বলে নিজেকে পরিমনির কাছে দাবি করেছেন।

পরিমনি-pori-moni-picture-porimoni-photo

তিনি জানিয়েছেন, গত চার দিন ধরে থানা থেকে শুরু করে চলচ্চিত্র বন্ধুদের কাউকে পাশে পাননি তিনি। চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতিতেও অভিযোগ নিয়ে গেছেন। কিন্তু তিনি কোনো প্রতিকার পাননি। যাদেরকে পেয়েছেন সবাই বিস্তারিত ঘটনা জেনে ‘দেখছি’ বলে চুপ হয়ে গেছে। তাই বাধ্য হয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট দিয়েছেন।

পরীমনির এমন অভিযোগের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক চিত্রনায়ক জায়েদ খান। এক গণমাধ্যমকে তিনি বলেন,  ‘পরীমণি আমার সঙ্গে যোগাযোগ করেছিলেন। একটি অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার বিচার চান তিনি।’ তবে অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনায় পরীমনি কতটা ভুক্তোভোগী হয়েছেন বা ঘটনাটি কি সে বিষয়ে কিছু জানাননি জায়েদ খান।

তবে এটাই স্পষ্ট যে, জায়েদ খানসহ বাংলাদেশ শিল্পী সমিতির কেউ কেউ এ ঘটনার প্রসঙ্গে অবগত আছেন।

এদিকে রোববার রাতে সাংবাদিকদের কাছে নির্যাতনকারীদের নাম পরিচয় প্রকাশ করেছেন পরীমনি। তিনি দুজনের নাম উল্লেখসহ ঘটনার কিছু বিবরণ দেন।

এর আগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে মা সম্বোধন করে ফেসবুকে এক দীর্ঘ স্ট্যাটাস দিয়েছেন ঢালিউডের আলোচিত নায়িকা পরিমনি। স্ট্যাটাসে প্রধানমন্ত্রীর কাছে বিচার চান এ চিত্রনায়িকা। যেখানে তিনি অভিযোগ করেছেন, তাকে ধর্ষণ ও এবং হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে। তিনি নির্যাতিত হয়েছেন। তবে সেই স্ট্যাটাসের কোথাও অভিযুক্তের নাম লেখেননি তিনি।  

পরি-মনি-পরিমনির-নতুন-ছবি-porimoni-new-photo

এরপর গণমাধ্যম কর্মীদের সঙ্গে মুঠোফোনে এই চিত্রনায়িকা কাঁদতে কাঁদতে জানান, তার দেয়া ফেসবুক স্ট্যাটাসটি সত্য। অনেক ভেবে চিন্তেই এই স্ট্যাটাস দিয়েছেন। তার সঙ্গে অনেক খারাপ কিছু ঘটেছে যে তিনি এই স্ট্যাটাস দিতে বাধ্য হয়েছেন।

তিনি বলেন, ‘আপনাদের জানানো ছাড়া আর কোনো উপায় নেই। গত কদিনে আমি শিল্পী সমিতি, থানা সব জায়গায় গিয়েছি। শেষ পর্যন্ত ফেসবুকে পোস্ট দিতে বাধ্য হয়েছি। আপনাদের মুখোমুখি হয়ে সব বলতে চাই আমি।’

কে বা কারা তাকে ধর্ষণ ও হত্যার চেষ্টা করেছে? সেই প্রশ্নের জবাবে বলেন, ‘এটা আমি অবশ্যই বলব। তবে ফোনে বলা যাবে না। আপনারা সাংবাদিকরা আসেন। আমি সবার সামনে, ক্যামেরার সামনে বলতে চাই। আমি সবাইকে জানাতে চাই। আমার ভরসা নষ্ট হয়ে গেছে। আমি কাউকে ভরসা করতে পারি না ভাই। আজ রাতে আমার যদি কিছু হয়ে যায় তার দায়িত্ব কে নেবে? আমি এজন্য ফোনে কিছু বলব না।’

সাংবাদিকরা তাঁর বাসায় গেলে তিনি অনেক জোরাজুরির পর অভিযুক্তদের নাম ও পরিচয় প্রকাশ করেন।

পরীমনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘তাদের একজন রাজধানীর উত্তরা ক্লাব লিমিটেডের সাবেক প্রেসিডেন্ট নাছির ইউ মাহমুদ এবং অন্যজন তার (পরিমনির) কস্টিউম ডিজাইনার জেমীর স্কুল ফ্রেন্ড অমি নামের এক ব্যবসায়ী।’

পরীমনি-পরিমনি-porimoni-photo-পরি-মনি

তিনি আরও বলেন, ‘গত বুধবার রাত ১২টায় আমাকে বিরুলিয়ায় নাছির ইউ মাহমুদের কাছে নিয়ে যায় অমি। সে সময় নাছির ইউ. মাহমুদ নিজেকে ঢাকা বোট ক্লাবের সভাপতি হিসেবে পরিচয় দেন।’

পরিমনি বলেন, ‘সেখানে নাছির ইউ মাহমুদ আমাকে মদ খেতে অফার করে। আমি রাজি না হলে আমাকে জোর করে মদ খাওয়ানোর চেষ্টা করে। জোরাজুরির এক পর্যায়ে নাছির ইউ. মাহমুদ আমাকে চড় থাপ্পড় মারে। তারপর শারীরিকভাবে নির্যাতন ও হত্যাচেষ্টা করেন। অমি ও এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত।’

কে এই অভিযুক্ত শিল্পপতি নাছির ইউ. মাহমুদ? জানুন বিস্তারিত

এ বিষয়ে অভিযোগ জানাতে বনানী থানায় গিয়েছিলেন জানিয়ে এ অভিনেত্রী বলেন, ‘থানায় লিখিত অভিযোগ দিতে গিয়েছিলাম। কিন্তু তারা আমার অভিযোগ শুনলেও, লিখিত কোনো কাগজপত্র নেয়নি। থানা থেকে তেমন কোনো সাড়া না পেয়ে চলে আসি।’

তিনি আরও বলেন, আমি শিল্পী সমিতির সঙ্গেও যোগাযোগ করেছি। সমিতির সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান তাকে আশ্বস্ত করলেও কোনো ব্যবস্থা নেননি। তাই তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে এই ঘটনার সুষ্ঠু বিচার চেয়েছেন।

পরিমনি-pori-moni-পরীমনি

আরও পড়ুন:

পরিমনি শারীরিক নির্যাতনের শিকার

নাসির মাসিক টাকা দিয়ে নিজের কাছে সুন্দরী তরুণীদের রাখতেন